হাসপাতালে নারীর মরদেহ

কুমিল্লায় গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

রান্না ঘরে প্রবেশ করে শানু বেগম (৪৫) নামে এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার ভোরে জেলার আদর্শ সদর উপজেলার কালিরবাজার ইউনিয়নের হাতিগাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত দেলোয়ার হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত শানু বেগম ওই গ্রামের ফরিদ মিয়ার স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভোরে শানু বেগম তেলের পিঠা তৈরি করছিলেন। এ সময় শানু বেগমের রান্না ঘরে প্রবেশ করে প্রতিবেশী দেলোয়ার হোসেন। ভোরে প্রতিবেশীর ঘরে যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে দেলোয়ার হোসেন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। এ নিয়ে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে শানু বেগমকে বটি দিয়ে গলায় আঘাত করে ঘর থেকে পালিয়ে যান দেলোয়ার। এ সময় স্থানীয়রা শানু বেগমকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার সাথে জড়িত দেলোয়ার হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে স্থানীয়রা। দেলোয়ার হোসেন ওই গ্রামের মৃত আবদুর রহমানের ছেলে।

কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ারুল হক জানান, নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে অন্য কোনো কারণ আছে কি-না তা আমরা খতিয়ে দেখছি। তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three + four =