২০ নারীর সর্বনাশকারী আর্মি সুমন গ্রেপ্তার! 2

২০ নারীর সর্বনাশকারী আর্মি সুমন গ্রেপ্তার!

কমপক্ষে ২০ নারীর সর্বনাশ করেছে আশরাফুল মোল্লা (৩৮) ওরফে সুমন আর্মি ওরফে সুমন হাসান ওরফে সুমন মোল্লা। নিজেকে সরকারি চাকরিজীবী পরিচয় দিয়ে মেয়ের সঙ্গে প্রেমের নামে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে ব্লাকমেইল করাই তার পেশা।

পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে প্রতারণার মাধ্যমে অন্তত তার ২০জন নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে। সেই ভিডিও ধারণ করে ব্লাকমেইলের মাধ্যমে ওই নারীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ও করেছে। এমন এক ঘটনায় যশোরের বাঘারপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে অজ্ঞাত আসামির নামে মামলা করা হয়।

একটি মোবাইল ফোনের নম্বরের সূত্র ধরেই ‘পেশাপাদার’ প্রেমিক আশরাফুল মোল্লাকে শনাক্তের পর গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

তার কাছ থেকে সেনাবাহিনীর ভুয়া আইডি কার্ড, তিনটি ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র, সেনাবাহিনীর একটি ক্যাপ, নেম প্লেটযুক্ত জ্যাকেট, সোয়েটার, ১৩টি সিম কার্ড, ধর্ষণের ভিডিও ধারণকৃত একটি মেমোরিকার্ড ও দুটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় প্রতারণাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ৪টি মামলা রয়েছে।

আশরাফুল মোল্যা নড়াইল সদর উপজেলার বোড়ামারা গ্রামের আকবর মোল্যার ছেলে।

মঙ্গলবার বিকেলে যশোর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, বাঘারপাড়া থানার একটি ধর্ষণ মামলার তদন্ত করতে গিয়ে আশরাফুল মোল্যাকে শনাক্ত করা হয়েছে। তিনি সেনাবাহিনীর সদস্য ও সরকারি চাকরিজীবী পরিচয়ে প্রতারণা করছিলেন।

তিনি আরও বলেন, আশরাফুল পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে, ২০১১ সাল থেকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে মেয়েদের সাথে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করতো। সেই ভিডিও ধারণ করে ব্লাকমেইল করে টাকা আদায় করতো। এই পর্যন্ত ২০ জন মেয়েকে একইভাবে ধর্ষণ করেছে আশরাফুল। তার বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় প্রতারণার মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল আল নাসের, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অপু সরোয়ার, জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওসি মারুফ আহমেদ প্রমুখ।

এইচ আর তুহিন/যশোর

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 5 =