হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে পাথর আমদানি 2

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে পাথর আমদানি

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে দিন-দিন বাড়ছে ভারত থেকে পাথর আমদানি। দেশের বড় বড় প্রকল্পে ব্যবহার হচ্ছে এই পাথর।

এদিকে পাথর আমদানিকে কেন্দ্র করে হিলিতে গড়ে উঠেছে পাথর বেচা-কেনার বিশাল বাজার। প্রতিদিন কোটি টাকার পাথর বিক্রি হচ্ছে এই বন্দরে।

পাথরে ছেয়ে গেছে হিলি স্থলবন্দরের পানামা ওয়ার হাউজের মাঠ। ওয়ার হাউসটির এক তৃতীয়াংশ জায়গা জুড়ে শুধু পাথর আর পাথর। প্রতিদিনই বাড়ছে ভারত থেকে পাথর আমদানির পরিমাণ।

বাংলাদেশের রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ বড় বড় কাজের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে ভারত থেকে আমদানিকৃত পাথর। দেশের পাথরের চাহিদা পুরনের জন্য একটি বড় অংশ এখন আমদানি হচ্ছে হিলি স্থলবন্দর।

পাকুর জাতের এসব পাথর আমদানি হচ্ছে ভারতের ঝাড়খান্ড রাজ্য থেকে। আর এসব পাথর পদ্মা সেতু তৈরীসহ দেশের বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট নির্মানে ব্যবহার করা হচ্ছে।

হিলি স্থলবন্দরের পাথর আমদানিকারকরা জানান, পাথর আমদানিকে কেন্দ্র করে এখানে গড়ে উঠেছে পাথর বেচা কেনার বিশাল বাজার। প্রতিদিন কয়েক কোটি টাকার পাথর বিক্রি হচ্ছে এই বন্দরে।

বন্দরের কাঠামোর উন্নয়ন করা হলে ব্যবসা বানিজ্যের আরও উন্নয়ন হবে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা।

হিলি স্থলবন্দর জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন প্রতাব মল্লিক জানান, ভারত থেকে যে পাথরগুলো হিলি স্থলবন্দরে প্রবেশ করছে সেগুলো পানামা হিলি পোর্ট লিংক লিঃ খুব দ্রুত খালাস করে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করছে।

হিলি স্থলবন্দর আমাদনি রপ্তানিকারক সমিতির সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন জানান, পাথর আমদানি বাড়ার সাথে সাথে দেখা দিয়েছে বন্দরের জায়গা সল্পতা।

প্রতিনিয়ত হিলি বন্দর দিয়ে ২শ থেকে ২শ ৫০ ট্রাক পাথর আমদানি হয়ে থাকে।

পোর্টের ভিতরের জায়গার সল্পতার কারনে যানজট প্রায় লেগে থাকে। যদি পোর্টের জায়গা বৃদ্ধি করা এবং পণ্যগুলো পোর্টের বাহিরে নামানো হলে যানজট কমবে সেই সাথে পাথরের আমদানি বাড়বে এবং পাথরের দাম অনেকটা কমবে বলে মনে করছে এই কর্মকর্তা।

হিলি কাষ্টমস রাজস্ব কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, কাষ্টমসের হিসেব মতে গত সাত মাসে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ৯ লাখ ৬৬ হাজার মেট্রিক টন পাথর আমদানি হয়েছে। এথেকে সরকারের রাজস্ব আয় হয়েছে ৭ কেটি ৫৭ লাখ টাকা।

-মোঃ আব্দুল আজিজ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 1 =