স্কুলছাত্র ইসমাইল হত্যার ঘটনায় মামলা 2

স্কুলছাত্র ইসমাইল হত্যার ঘটনায় মামলা

স্কুলছাত্র ইসমাইল হোসেন হৃদয় (১২) হত্যার ঘটনায় হবিগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে নিহত স্কুলছাত্রের চাচা টেনু মিয়া বাদি হয়ে অজ্ঞাত ৭/৮জনকে আসামী করে হবিগঞ্জ সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ। হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনে আটককৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ চালনো হচ্ছে। তবে তদন্তের সার্থে আটককৃতদের সংখ্যা ও নাম প্রকাশ করতে চায়নি পুলিশ।

নিহত ইসমাইল হোসেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার উত্তর তেঘরিয়া গ্রামের সৌদি প্রবাসী ফারুক মিয়ার ছেলে ও তেঘরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্র। একমাত্র সন্তানের খুনের সংবাদ শুনে মঙ্গলবার সৌদিআরব থেকে দেশে ফিরেছেন। পরে বাদ জোহর তার দাফন সম্পন্ন হয়।

নিহত স্কুলছাত্রের পিতা ফারুক মিয়া বলেন, ‘যারা আমার অবুঝ শিশু-সন্তানকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে আমি তাদের ফাঁসি চাই। তাদের ফাঁসি দিলে আমার সন্তানের আত্মা শান্তি পাবে।’

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী বলেন- ‘স্কুলছাত্র ইসমাইল হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে (বুধবার) প্রেস বিফিংয়ের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে।

উল্লেখ্য- সম্প্রতি স্কুলছাত্র ইসমাইল হোসেনকে ১৫ হাজার টাকা দামের একটি মোবাইল ফোন কিনে দেন তার মা। গত শুক্রবার বিকেলে সে ইউটিউবে ছাড়ার জন্য ফানি ভিডিও করতে মোবাইল নিয়ে বাসা থেকে বের হয়। রাত হয়ে গেলেও সে বাড়ি ফিরে আসেনি।

এ ব্যাপারে ওইদিন রাতেই নিখোঁজ ছাত্রের মা হবিগঞ্জ সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। পরে সোমবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুর দেড়টায় শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার চরহামুয়া এলাকার খোয়াই নদী থেকে হাত-পা বাঁধা ক্ষত-বিক্ষত মরদেহটি উদ্ধার করে সদর থানা পুলিশ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − ten =