সাংবাদিক ও পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময়ে তিন যুবক আটক 2

সাংবাদিক ও পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময়ে তিন যুবক আটক

লকডাউন ভঙ্গের অভিযোগে একাধিক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজির সময়ে তিন যুবককে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করা হয়েছে।

শনিবার রাতে সদর উপজেলার ইটবাড়িয়া এলাকার কালিচান্না খেয়াঘাটের অপরপ্রান্ত থেকে এই তিন যুবক আটক হয়।

এরা হলো- শহরের বড় চৌরাস্তা এলাকার মোহাম্মদ রাহাত (২৫), রিফাত হোসেন (২৩) এবং মেহেদী হাসান(২৫)।

তাদের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগে সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে নিশ্চিত করেছে সদর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ আক্তার মোর্শেদ।

ভুক্তভোগীদের বরাদ দিয়ে পুলিশ জানায়, শনিবার সন্ধ্যায় আটককৃত তিন যুবক একটি মোটর সাইকেল যোগে শহরতলির এক নং ব্রীজ এলাকায় অবস্থান করে।

এসময় করোনা পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসন কর্তৃক দেয়া লকডাউন উপেক্ষা করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার অভিযোগে ওই এলাকায় একাধিক প্রতিষ্ঠান মালিকদের ভয়-ভীতি দেখিয়ে অর্থ আদায় করে।

এরই ধারাবাহিকতায় পরবর্তীতে ওই তিন যুবক সদর উপজেলার ইটবাড়িয়া এলাকার কালিচান্না খেয়াঘাটের অপরপ্রান্তে অবস্থান করে একই ভাবে অর্থ আদায় করে।

এসময় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা কারও কাছে সাংবাদিক, কারও কাছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয় দেয়।

স্থানীয়দের মোবাইল থেকে ধারণ করা একটি ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়- তিন যুবক স্থানীয়দের কাছে দাবি করছে করোনা পরিস্থিতিতে তাদের এ অভিযান চালানোর বৈধতা রয়েছে।

পরে স্থানীয়দের সাথে ওই তিন যুবক চ্যালেঞ্জ করলে স্থানীয়রা পটুয়াখালী সদর থানা পুলিশকে অবহিত করে এবং যুবকদের আটক করে রাখে।

এসময় তা‌দের ম‌ধ্যে একজ‌নের কা‌ছে ভো‌রের কন্ঠ প‌ত্রিকার আই‌ডি কার্ড পাওয়া যায়।

খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন কবির ও (অপারেশন) জসিম উদ্দীন ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এসময় পুলিশ ওই তিন যুবকের কাছ থেকে চাঁদাবাজির অন্তত ৫ হাজার টাকা ও ব্যবহৃত একটি মটরসাইকেল জব্দ করে।

স্থানীয়দের দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে তিন যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × five =