রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা করছে গাম্বিয়া 2

রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা করছে গাম্বিয়া

রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মামলা করার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করেছে গাম্বিয়া। দেশটির আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেল এ কথা জানান। এদিকে অব্যাহত আন্তর্জাতিক চাপ সত্ত্বেও মিয়ানমার রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সুনির্দিষ্ট কোনো উদ্যোগ না নেয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ।

২০১৭ সালের ২৫শে আগস্টের পর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ভয়াবহ নির্যাতনের জেরে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা। দুই বছর পার হলেও একজন রোহিঙ্গাকেও ফিরিয়ে নেয়নি দেশটি। এ নিয়ে নেইপিদোকে বিভিন্ন মহল থেকে চাপ দেয়া হলেও, ভ্রুক্ষেপ নেই তাদের। এ বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। মঙ্গলবার জাতিসংঘ সদর দফতরে মিয়ানমার বিষয়ক ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনের প্রধান মারজুকি দারুসমান এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘মিয়ানমার এখনও গণহত্যার যুগে পড়ে আছে। তারা পরিবেশ পরিস্থিতির উন্নতি করতে ব্যর্থ হয়েছে। এছাড়া যেসব অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে সেবিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি তারা।’

এ অবস্থায় গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারকে আইনের আওতায় আনতে শিগগিরই নেদারল্যান্ডসে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মামলা করতে যাচ্ছে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। দেশটির আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেল আবু বকর মারি তাম্বাদু বলেন, ‘চলতি মাসের শুরুতেই আমরা মামলার নির্দেশ দিয়েছি। মামলা করার সবরকম প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। আমি জানি, মিয়ানমারের নাগরিকরা কতটা অসহায় হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। কক্সবাজার পরিদর্শনকালে তাদের করুণ দশা শুনেছি।’

এদিকে, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের আরও সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − five =