যেখানে ধর্ষণের ভয়ে মেয়েকে শিকলে বেঁধে রাখেন মা! 2

যেখানে ধর্ষণের ভয়ে মেয়েকে শিকলে বেঁধে রাখেন মা!

১৬ বছর বয়সী কিশোরী মেয়ের পায়ে বছরখানেক ধরে শিকল বেঁধে তাকে আটকে রেখেছেন মা।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়িতে।

জানা গেছে, মেয়েটি খুবই সহজ সরল। এই সুযোগ নিয়ে যদি কেউ তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে- এই ভয় থেকেই মেয়েকে শিকলবন্দি করেছেন লক্ষ্মী বণিক।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন বলছে, মেয়েকে নিয়ে বাড়িতে একাই থাকেন লক্ষ্মী। তার ধারণা, কেক-চকলেট খেতে ভালোবাসে মেয়ে। খাবারের লোভ দেখিয়ে বা ঘুরতে যাওয়ার টোপ দিয়ে মেয়েকে ভুলিয়ে নিয়ে যেতে পারে যে কেউ।

সেই আশঙ্কায় পায়ে বেড়ি পরিয়েছেন তিনি। লক্ষ্মীর ছোট একটি দোকান আছে। সেই দোকানে তাকে প্রায় সারাদিনই থাকতে হয়। একলা মেয়েকে তখন বাড়িতেও রাখতে সাহস পান না তিনি। শিকল-পরা অবস্থাতেই সঙ্গে করে নিয়ে যান দোকানে। আবার সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে আসেন মেয়েকে নিয়ে।

সন্ধ্যায় কিছু সময় শিকল খুলে রাখেন। রাতে শুতে যাওয়ার আগে ফের শিকল পরিয়ে দেন মেয়ের পায়ে।

লক্ষ্মী জানান, ধর্ষণ বা যৌন হেনস্থার শিকার হওয়ার ভয়েই তিনি মেয়ে বাড়িতে বেঁধে রাখেন। মেয়ে একটু সহজ-সরল। কিছুটা বোকাও। হুটহাট করে মেয়ে বাইরে চলে গেলে তার ভয় হয়।

চারপাশে যে ভাবে ধর্ষণ আর যৌন নির্যাতনের খবর শুনছেন, তাতে তার আতঙ্ক আরও বাড়ছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 3 =