মুন্সীগঞ্জে তৈরী পিপিই পাওয়া যাবে ৩০০ টাকায় 2

মুন্সীগঞ্জে তৈরী পিপিই পাওয়া যাবে ৩০০ টাকায়

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি : মুন্সীগঞ্জ শহরের উত্তর ইসলামপুর এলাকার একটি বাড়িতে পার্সোনাল প্রোটেকশন ইকুইপম্যান্ট পিপিই তৈরী করা হচ্ছে। একই সঙ্গে সেখানে তৈরী করা হচ্ছে মাস্কও।মুন্সীগঞ্জে তৈরী পিপিই পাওয়া যাবে ৩০০ টাকায় 3

ওই এলাকার মো. কামাল হোসেনের তিন কক্ষের বাড়িতে এ পিপিই তৈরী করছেন নারী শ্রমিকরা। সোমবার সকালে সরেজমিনে ঘুরে পিপিই ও মাস্ক তৈরীর এ দৃশ্য চোখে পড়েছে।

এ সময় সেখানে দেখা গেছে- কামাল হোসেনের বাড়িতে পাঁচজন নারী শ্রমিক পিপিই ও মাস্ক তৈরী করছেন।

পিপিই’র কাপড় কাটার কাজ করছেন কামাল হোসেন নিজেই। মেশিনের সাহায্যে নির্দিষ্ট মাপের একেকটি পিপিই’র কাপড় কেটে থাকেন তিনি। তারপর নারী শ্রমিকরা তা সেলাই করছেন।

কামাল হোসেন জানান, দেশে করোনা আতংকের শুরু থেকেই তিনি মাস্ক ˆতরীর কর্মকান্ড শুরু করেন নিজ বাড়িতে। দিনে ৫০০ পিস মাস্ক তৈরী করা হয়ে থাকে।

পাইকারে বাজারে প্রতি পিস মাস্ক ৮ টাকা দরে বিক্রি করে থাকেন। তবে পিপিই তৈরী শুরু করেছেন রবিবার থেকে। বাজারে একেক পিস পিপিই ৩০০ টাকা দরে বিক্রি করতে পারবেন।

তার দাবী, তিনি ননওভেন কাপড় দ্বারা এ পিপিই তৈরী করা হচ্ছে। যা করোনা সংক্রমনের সময় ব্যবহার করা যাবে।

সেখানে কর্মরত নারী শ্রমিক শাহানা বলেন, আমাদের তৈরী মাস্ক স্থানীয় বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে। খুবই কম দামে বাজারে এ মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে। তবে পিপিই তৈরীর কাজ রবিবার থেকে শুরু হয়েছে। ৫০ পিসের মতো পিপিই তৈরী করা সম্ভব আমাদের পক্ষে।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা: আবুল কালাম আজাদ বলেন, চিকিৎসকদের মাঝে সরবরাহকৃত পিপিইয়ের একটি মান রয়েছে। স্থানীয়ভাবে যে সব পিপিই তৈরী ও বাজারজাত করা হচ্ছে তার মান নির্ণয় করা যাচ্ছে না। তবে সুরক্ষার জন্য অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে এ পিপিই বা গাউন কিনে ব্যবহার করতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × five =