মসজিদে নামায আদায়ের সময় নির্ধারণ নিয়ে আহত ১ 2

মসজিদে নামায আদায়ের সময় নির্ধারণ নিয়ে আহত ১

নওগাঁর মান্দায় মসজিদে নামায আদায়ের সময় নির্ধারণকে কেন্দ্র করে মারপিটে ১ মুসল্লি অাহত হয়েছেন।

আহত মুসল্লি দূর্গাপুর গ্রামের মৃত হানিফ উদ্দিনের ছেলে আলমগীর হোসেন ।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাৎক্ষণিকভাবে তাকে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করিয়ে দেন।

বর্তমানে তিনি মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মৈনম ইউপি’র নলকুড়ি- দূর্গাপুর গ্রামে।

জানা গেছে, গত শনিবার রাতে এশা’র নামায আদায়ের সময় নির্ধারণকে কেন্দ্র করে মসজিদ কমিটির সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিনের সাথে স্থানীয় মুসল্লিদের আলোচনার একপর্যায়ে মুসল্লি আলমগীরের বাক বিতণ্ডা হয়।

এরপর ওই বিষয়টি গিয়াস উদ্দিন মাষ্টার নিজের কাছে অপমানজনক মনে করে নিজ বাড়িতে গিয়ে ছেলে এবং নাতীদেরকে অবগত করেন।

এতে তারা অর্থাৎ গিয়াস মাষ্টারের ছেলে ছাত্রলীগ নেতা তাজ, নাতী ইমরান ও রাসেল ক্ষিপ্ত হয়ে আলমগীরকে মারপিটে উদ্বুদ্ধ হয় এবং গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় পূর্বপরিকল্পিতভাবে পথরোধ করে বাঁশের লাঠি দিয়ে ব্যাপক মারপিট করা হয়েছে বলেন জানান ভূক্তভোগী আলমগীর ।

এসময় অভিযুক্তদের লাঠির আঘাতে আলমগীরের হাতের হাড় ফেটে যায় এবং হাটুর নিচে প্রচণ্ডভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হন বলে জানিয়েছেন তার বড় ভাই আফজাল হোসেন।

এঘটনায় এলাকাজুড়ে ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

আলমগীর এর একটা সুষ্ঠ সমাধান কামনা করেছেন। তাছাড়া তিনি মামলা করতে বাধ্য হবেন বলে জানান।

অপরদিকে মসজিদ কমিটির সভাপতির দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেয়া সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মাষ্টার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত।

বিষয়টি নিয়ে ৬ নং মৈনম ইউনিয়ন পরিষদে স্থানীয়ভাবে বসে একটা সমাধানের জন্য পরামর্শ দিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াসিন আলী (রাজা) । সে মোতাবেক একটা সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তবে উনি ক্ষোভের বসে এও জানিয়েছেন যে ছেলেটি অপমানজনক কথা বলার কারণেই ছাত্রলীগ নেতা- কর্মী
(আমার ছেলে এবং নাতী) আমার সাথে খারাপ আচরণ করার জন্য ওকে মারপিট করেছে বলে স্বীকার করেছেন।

এব্যাপারে মৈনম ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াসিন আলী রাজা বলেন, বিষয়টি শুনেছি। করোনার কারনে সবাই ব্যস্ত। খুব দ্রুত একটা সময় করে এর একটা সমাধান করে দেয়া হবে। যাতে করে আগামীতে আর এর রকম কোন অনাকাঙ্ক্ষিত বা অপ্রীতিকর ঘটনার পূনরাবৃত্তি না ঘটে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × three =