সাধনা ইয়াসমিন ও সাবেক ডিসি আহমেদ কবীর

ডিসির নারী কেলেঙ্কারী : সর্বত্র ক্ষোভ

জামালপুরের সদ্য সাবেক জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধ তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের খাস কামরায় নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা।

ডিসির এমন অনৈতিক কাজের মাধ্যমে জামালপুর জেলারও সম্মানহানী হয়েছে বলে দাবি করছেন স্থানীয়রা। এজন্য তারা দ্রুত ঘটনার তদন্ত করে বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

জামালপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ বাকীবিল্লাহ সংবাদমাধ্যমের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ডিসির এমন অপকর্মে জামালপুর জেলাবাসীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে। দ্রুত নিরপেক্ষ তদন্ত করে বিষয়টি নিষ্পত্তি হওয়া প্রয়োজন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির দাবি করছি।

জামালপুর নাগরিক আন্দোলনের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর সেলিম। তিনি একজন মানবাধিকার কর্মী। সেলিম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, যে ঘটনা ঘটেছে তার যদি শাস্তি না হয় তাহলে নারী কর্মীরা সরকারি-বেসরকারি অফিসে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগবে। এজন্য তিনি তদন্তসাপেক্ষে কঠোর বিচারের দাবি জানান।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও শিক্ষক সমিতির নেতা অধ্যক্ষ আবদুল হামিদ বলেন, এ ঘটনার তদন্ত করে দেশের প্রচলিত আইনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। বিষয়টি নিয়ে তিনি ব্যাপক ক্ষোভও প্রকাশ করেন।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)-এর জেলা সভাপতি জাহিদ হাবীব বলেন, জেলা প্রশাসক পদে থাকার অধিকার হারিয়েছেন। তিনি জামালপুরবাসীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করেছেন। দ্রুত তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + 2 =