অফিসের সামনে ভুক্তভোগীদের বিক্ষোভ

গ্রাহকের টাকা নিয়ে ‘সকস বাংলাদেশ’

ভোলায় গ্রাহকের প্রায় ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে “সকস বাংলাদেশ” নামের এনজিও উধাও হয়ে গেছে। খবর পেয়ে ভুক্তভোগী গ্রাহকরা ‘সকস বাংলাদেশ’ নামের এনজিও অফিসের সামনে টাকার দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান নিয়েছেন।

মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারী) ভোলার পূর্ব ইলিশা পরানগঞ্জ বাজার সংলগ্ন বিশ্ব রোডের পাশে মীর টাওয়ারের এ ঘটনা ঘটে। গ্রাহক আলিম, ইউসুফ, পারুল বিবি, ফাতেমা, মরিয়ম, আয়েশা, ইয়ানুর, মরিয়ম, পারভিন, হাজেরা, নারগিস, রতন, আক্তার, দিদার মোল্লা, মফিজ মোল্লা বলেন, ‘সকস বাংলাদেশ’ নামের একটি এনজিও মীর টাওয়ারে ভাড়া নিয়ে দুই সপ্তাহ ধরে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলো।

তারা আমাদের এলাকায় গিয়ে ঋণ দিবে বলে জনপ্রতি ৭৫০০, ৫০০০, ৩০০০ সঞ্চয়ের টাকা নিয়েছে। মঙ্গলবার সকালে আমাদেরকে লোন দেওয়ার কথা ছিলো। আমরা লোন (ঋণ) নিতে এসে দেখি অফিস তালাবদ্ধ। একটি সাইনবোর্ড ছিলো তাও খুলে নিয়ে গেছে। এখন আমরা কি করবো? আমরা অসহায় মানুষ। সুদের উপর টাকা নিয়ে এখানে স য় জমা দিয়েছি। যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের টাকা না পাবো আমরা এই অফিসের সামনে বসে থাকবো।

গ্রামীণ সমাজ কল্যাণ পাঠাগারের আহ্বায়ক ইমাম হোসেন কান্টু বলেন, গত কয়েকদিন আগে এখানে ‘সকস বাংলাদেশ’ নামের একটি এনজিও ঘর ভাড়া নিয়ে অফিস খুলেছে। তারা একটি সাইনবোর্ড টানিয়ে মানুষের বাড়ি বাড়িয়ে ঋণ দেওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে প্রায় ১০/১২ লক্ষ টাকা উত্তোলন করে।

মঙ্গলবার গ্রাহকদেরকে ঋণ দেওয়া হবে জানিয়ে তাদেরকে অফিসে আসতে বলে। তারা এখানে এসে দেখে অফিস তালাবদ্ধ। প্রতারকরা গ্রাহকদের টাকা নিয়ে রাতে এখান থেকে মালামাল নিয়ে পালিয়ে গেছে। প্রতারকদেরকে সনাক্ত করে ভুক্তভোগী গ্রাহকদের কষ্টের টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি।

এদিকে বাড়ীর মালিক মীর আনোয়ার হোসেন বলেন, আমাদের সাথে চুক্তিপত্র হওয়ার আগেই তারা পালিয়ে গেছে।

ভোলা সদর থানার এসআই রফিকুল ইসলাম ফিরোজ বলেন, আমরা খবর পেয়েছি একটি ভুয়া এনজিও গ্রাহকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ঘটনাস্থলে এসে ভুক্তভোগী গ্রাহকদের সাথে কথা বলেছি। আমরা চেষ্টা করবো ভুয়া এনজিও সনাক্ত করে গ্রাহকদের টাকা উদ্ধার করার।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − five =