ক্যান্টিন মালিককে খাওয়ানো হল 'পঁচা’ মাংস 2

ক্যান্টিন মালিককে খাওয়ানো হল ‘পঁচা’ মাংস

শিক্ষার্থীদেরকে খেতে দেয়া ‘পঁচা’ মাংস জোর করে খাওয়ানো হল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসিম উদদীন হলের ক্যান্টিন মালিককে।

শিক্ষার্থীরা ‘পঁচা’ মাংস খাওয়ানোয় সেই মাংস জোর করে খাওয়ানো হল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসিম উদদীন হলের ক্যান্টিন মালিককে।মঙ্গলবার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসুর সদস্য তানভীর হাসান সৈকতের নেতৃত্বে এ ঘটনা ঘটে।

ডাকসু সদস্য সৈকত জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে ঢাবির কবি জসিম উদদীন হলের ক্যান্টিনে শিক্ষার্থীরা তাদের রাতের খাওয়ার খেতে যায়।এ সময় তাদেরকে পঁচা-বাসি খাওয়ার দেয়া হয়। মাংস পঁচে যাওয়ায় ক্যা‌ন্টিন মা‌লিক এই পঁচা মাংসে লবণ বা‌ড়িয়ে রান্না করে সেগুলো শিক্ষার্থীদের খাওয়াচ্ছে।

এরপর আমি এর প্রতিবাদ করতে গেলে ক্যান্টিনে খাচ্ছেন এমন অনেক শিক্ষার্থীই প্রতিবাদ জানায়। তারা আমার কাছে এটাও অভিযোগ করে যে, ক্যান্টিন মালিক মাঝে মাঝেই এই ধরনের পঁচা খাবার খাওয়াচ্ছে।

সৈকত বলেন, ‘এরপর আমি ক্যান্টিনের দায়িত্বে থাকা স্যারকে আসার জন্য অনুরোধ করলে তিনি আসেন। এ সময় ক্যান্টিন ম্যানেজারকে ওই মাংস খেতে বললে তিনি মুখে নিয়ে বমি করে দেন। স্যারকে খেতে বললে তিনিও মুখে নিতে পারেননি। পরে ম্যানেজারের মাধ্যমে ক্যান্টিন মালিককে ফোন করে আসতে বলি। কিছুক্ষণ পর ক্যান্টিন মালিক হল সংসদের ভিপিকে সঙ্গে নিয়ে ক্যান্টিনে আসেন। এরপর মালিককে অবশিষ্ট সেই মাংস খেতে বললে তিনি একটু খেয়েই অস্বীকৃতি জানান। পরে শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে তাকে পুরোটাই খেতে বাধ্য করা হয়।’

কবি জসিম উদদীন হলের শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, মাঝে মাঝেই ক্যান্টিনে ‘পঁচা’ খাবার পরিবেশন করা হয়। এছাড়া খাবারে অখাদ্য বস্তু বা তরকারিতে লবণ কম অথবা বেশি হয়। ছাত্ররা বিভিন্ন সময় ক্যান্টিন ম্যানেজারকে বললেও এর প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

পরে ওই ক্যান্টিন মালিক শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চান এবং পুনরায় এ রকম না হওয়ার আশ্বাস দেন বলে সৈকত জানান।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × three =